সমাজ articles

চাঁদে কলঙ্ক খোঁজার অপচেষ্টা!

চাঁদে কলঙ্ক খোঁজার অপচেষ্টা!

জহির উদ্দিন বাবর মাদক ভয়াবহ আকার ধারণ করায় সম্প্রতি দেশে পরিচালিত হয়েছে বড়ধরনের একটি অভিযান। সরকারের সর্বোচ্চ মহলের নির্দেশে দেশব্যাপী সাঁড়াশি এই অভিযান পরিচালিত হয়। ‘চলো যাই যুদ্ধে মাদকের বিরুদ্ধে’ এই স্লোগানে র‌্যাব-পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী একযোগে এই অভিযানে নামে। এই অভিযানে মাদক কারবারিদের মধ্যে ভয় ঢুকিয়ে দেয়ার চেষ্টা করা হয়। এজন্য কয়েক দিনের ধারাবাহিক অভিযানে

একটি নিষ্ঠুতার গল্প ও দায়বোধের প্রসঙ্গ

জহির উদ্দিন বাবর পৃথিবীতে বাবার চেয়ে আপনজন আর কে আছে? একজন বাবা তার জীবনের সবটুকু তিলে তিলে ব্যয় করে গড়ে তোলেন সন্তানকে। নিজের আরাম-আয়েশের কথা চিন্তা না করে সন্তানের জন্য সবকিছু করেন। বাবার পৃষ্ঠপোষকতায় সন্তান একদিন বড় হয়ে ওঠে, পৌঁছে উচ্চতায়। সেই সন্তান যদি বড় হয়ে নিজের শিকড় ভুলে যায়, বাবাকে আর স্মরণ রাখার প্রয়োজন

নারীমুক্তির সোপান

নারী-পুরুষের সমন্বয়ে গড়ে উঠেছে মানবসভ্যতা। পৃথিবীর ভারসাম্য বজায় রাখতেই মহান স্রষ্টা এই সুচারু ধারা চালু করেছেন। সভ্যতার বিনির্মাণ ও সুন্দর পৃথিবী গড়ার ক্ষেত্রে নারী-পুরুষ পরস্পরের পরিপূরক। একজনকে ছাড়া অন্যজনের অস্তিত্ব ও বিকাশ কল্পনা করা যায় না। সৃষ্টির সহজাত ধারায় নারী-পুরুষের মধ্যে মর্যাদাগত কোনো পার্থক্য নেই। তারপরও যুগে যুগে বিভিন্ন জাতি-গোষ্ঠী নারীদের বঞ্চিত করেছে তাদের প্রাপ্য

কওমী মাদরাসা জাতিকে কী দিয়েছে!

ইতিহাসের এক যুগসন্ধিক্ষণে যাত্রা শুরু কওমী মাদরাসার। বৃটিশ ওপনিবেশ শাসনের শেষ পর্যায়ে এসে পরাধীন জাতির মুক্তির চেতনা নিয়ে কওমী মাদরাসা শিক্ষাধারার সূচনা। এটি ইসলামী শিক্ষার ঐতিহ্যবাহী প্রাতিষ্ঠানিক পরিচিতি। মৌলিকত্ব, অনাড়ম্বরতা ও নৈতিক আপসহীনতা এ শিক্ষার গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য। দারুল আরকাম থেকে সূচিত নববী শিক্ষার ধারাবাহিকতা মদীনা, কুফা, বসরা, মিশর, দামেশক, বাগদাদ, খোরাসান, মধ্য এশিয়া হয়ে দিল্লি

বর্ষবরণে বস্ত্রহরণ, একমুঠো ভাবনা

বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে মাতামাতিটা অন্য যেকোনো সময়ের চেয়ে এখন একটু বেশি। তথাকথিত বাঙালি সংস্কৃতির নামে প্রতি বছর এতে যোগ হয় নতুন মাত্রা। মিডিয়া আর বহুজাতিক কোম্পানিগুলোর উস্কানিতে এখন বাংলা নববর্ষের দিন ঢাকা শহরের বেশির ভাগ নারী-পুরুষই রাস্তায় বেরিয়ে যান। ৩৬৪ দিন ঢাকা শহর সচল থাকলেও একদিন মোটামুটি অচল হয়ে যায়। পয়লা বৈশাখ রাজধানীর রাস্তা বের

ইতিবাচক বাংলাদেশের প্রতিচ্ছবি

তুরাগ অনুষ্ঠিত হচ্ছে ৫০ তম বিশ্ব ইজতেমা। ধর্মীয় সম্প্রীতি ও সহাবস্থানের এদেশে শুধু মুসলমানদের কাছেই নয়, অমুসলিমদের কাছেও ইজতেমা উপলক্ষটি গুরুত্ব পায়। জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সবাই ইজতেমার এই গণজমায়েতকে সম্মান করেন, সাধ্যমতো সহায়তা জোগান। ইজতেমায় অংশগ্রহণকারী শান্তিপ্রিয় মুসল্লিদের সবাই সমীহ ও শ্রদ্ধা করেন। কারণ ইজতেমা গতানুগতিক ধারার কোনো সমাবেশ নয়। প্রভুভক্তির অপূর্ব নজির স্থাপিত

নারী এখন মিডিয়া-বিজ্ঞাপনে প্রদর্শনের বস্তু

শালীনতা নারীত্বের অহংকার। বাইরের কলুষিত পরিবেশ থেকে বেঁচে থেকে ঘর ও ঘরোয়া পরিবেশে বেড়ে ওঠা তাদের  সামাজিক অধিকার। প্রদর্শনেচ্ছা নারীত্বের সহজাত বৃদ্ধির পথে বড় অন্তরায়। আল্লাহ পাক সৃষ্টির  প্রতিটি বস্তুর জন্য স্ব স্ব ক্ষেত্র নির্ধারণ করে দিয়েছেন। নিজস্ব ভুবনে, আপন পরিমণ্ডলে বিচরণ করলে তাদের অবস্থান যেমন সুদৃঢ় হয় তেমনি পথচলাও হয় নিঝঞ্জাট। নিজস্ব অবস্থান থেকে

আলেমদের সমাজঘনিষ্ঠতা আরো বাড়াতে হবে

সমাজের গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ আলেমসমাজ। সমাজের ভরসাস্থলও তাঁরাই। তাদের প্রতি সাধারণ মানুষের মূল্যায়ন সমাজের অন্য যেকোনো শ্রেণীর চেয়ে একটু ভিন্ন। তাদেরকে সবাই যেমন সম্মানের চোখে দেখে, তেমনি কিছু ব্যতিক্রম বাদে সমীহও করে। এজন্য সমাজে আলেম-ওলামার ভূমিকাটা অন্যদের তুলনায় জোরালো হওয়ার কথা। ধর্মীয় প্রয়োজন তাঁরা যথার্থভাবেই পূরণ করছেন। জাতিকে অবক্ষয়ের হাত থেকে রক্ষা করতেও তাদের প্রয়াস লক্ষ্যণীয়।

বালাকোট: স্বাধীনতা সংগ্রামের অমলিন ইতিহাস

উপমহাদেশের মুসলিম ইতিহাসে বালাকোট একটি স্মরণীয় নাম। এর সঙ্গে জড়িত মুসলমানদের স্বাধীনতা, অস্তিত্ব ও জাগরণের ইতিবৃত্ত; পথহারা উম্মতের সঠিক পথের নির্দেশনা। ইংরেজ আমলে পরবর্তী সময়ে সংঘটিত প্রতিটি আন্দোলন, সংগ্রাম, গণঅভ্যুত্থান বালাকোটের চেতনার ফসল। বালাকোটের ঐতিহাসিক ট্রাজেডির মাধ্যমে সূচিত সংগ্রামের সিঁড়ি বেয়েই এ দেশের মুসলমানরা ফিরে পেয়েছিল তাদের স্বাধীনতা। বালাকোট আন্দোলনের প্রাণপুরুষ ছিলেন সৈয়দ আহমদ রহ.।

সমাজেও চাই আলেমদের সরব ভূমিকা

সমাজের গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ আলেমসমাজ। সমাজের ভরসাস্থলও তাঁরাই। তাদের প্রতি সাধারণ মানুষের মূল্যায়ন সমাজের অন্য যেকোনো শ্রেণীর চেয়ে একটু ভিন্ন। তাদেরকে সবাই যেমন সম্মানের চোখে দেখে, তেমনি কিছু ব্যতিক্রম বাদে সমীহও করে। এজন্য সমাজে আলেম-ওলামার ভূমিকাটা অন্যদের তুলনায় জোরালো হওয়ার কথা। ধর্মীয় প্রয়োজন তাঁরা যথার্থভাবেই পূরণ করছেন। জাতিকে অবক্ষয়ের হাত থেকে রক্ষা করতেও তাদের প্রয়াস

Top